অনুসন্ধান - অন্বেষন - আবিষ্কার

আন্দরকিল্লায় হেফাজতের বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ

গ্রিক মূর্তি অপসারণ করা না হলে সরকারের পতন অনিবার্য

৩৭৭

নিউজ হওয়ার সাথে সাথেই আপডেট পেয়ে যান আপনার ডিভাইসে, এখনি সাবষ্ক্রাইব করুন

চট্টগ্রামে হেফাজতের বিশাল সমাবেশ।

অবিলম্বে গ্রিক মুর্তি অপসারণ করা না হলে সরকারে পতন অনিবার্য উল্লেখ করে হেফাজতে ইসলামের নেতারা বলেছেন-প্রয়োজনে আবারো শাপলা চত্তরে অবস্থান কর্মসূচী দেওয়া হবে। অতীতে শাপলা চত্তরের অবস্থান কর্মসূচী থেকে আমরা হেফাজত আমীরের নির্দেশে চলে এসেছি কিন্তু ইসলামী বিরোধী কার্যকলাপ যদি সরকার কঠোর হাতে দমন না করে এবং অবিলম্বে গ্রিক মুর্তি অপসারণ করা না হয় তাহলে আবারো শাপলা চত্তরে অবস্থান কর্মসূচী দেওয়া হবে। এবার আর শাপলা চত্তর থেকে তৌহিদী জনতা ফিরে আসবে না যতক্ষণ সরকারের পতন না হবে।

সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে গ্রিক দেবির মূর্তি স্থাপনের প্রতিবাদে, অপসারণের দাবিতে ও হেফাজত নেতৃবৃন্দের মামলা প্রত্যাহরের দাবীতে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ এসব বক্তব্য দেন হেফজতে ইসলামের নেতারা।

আজ ১০মার্চ শুক্রবাদ বাদ জুমা নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদের উত্তর গেট চত্বরে এই বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, সর্বোচ্চ বিচারালয়ের সামনে গ্রিক দেবির মূর্তি স্থাপন বাংলাদেশের গণমানুষের ধর্মীয় বিশ্বাস, সংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও আদর্শিক চেতনার বিপরীত। কোন মুসলমান মূর্তিকে ন্যায় বিচারের প্রতীক বিশ্বাস করলে তার ঈমান থাকবে না। বাংলাদেশে মূর্তি স্থাপনের চাহিদা ও সুযোগ কোনটাই নেই। অবিলম্বে এই মূর্তি অপসারণ করতে হবে। অন্যথায় ঈমান, আক্বীদা ও ঐতিহ্য রক্ষার লক্ষ্যে মূর্তি অপসারণের দাবীতে প্রয়োজনে লাখ লাখ মানুষ নিয়ে ঢাকা ঘেরাওসহ শাপলা চত্তরে আবারো অবস্থান কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে। নেতৃবৃন্দরা বলেন, অবিলম্বে গ্রিক মুর্তি অপসারণ করা না হলে সরকারের পতন অনিবার্য।

.

বক্তারা বলেন, মসজিদের নগরী ঢাকাকে মূর্তির নগরী বানানো হচ্ছে কার স্বার্থে? দেশের বিভিন্ন এলাকায় ভাস্কার্যের নামে মূর্তি তৈরী করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। যারা মূর্তির পক্ষে কথা বলছেন তারা জনবিচ্ছিন্ন। এরা নাস্তিকদের দালাল। মূর্তি ও অপসংস্কৃতি চর্চা থেকে সরকারকে বের হয়ে আসতে হবে। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশের মূর্তি সংস্কৃতি কেন? মূর্তি ও অপসংস্কৃৃতি দুটিই ইসলামবিরোধী। মূর্তি ও অপসংস্কৃতিকে বৈধ মনে করলে মুসলমানিত্ব থাকবে না। ইসলাম এসেছে মূর্তিরপুজার বিরুদ্ধে। রাসূল সা. বলেছেন, আমি প্রেরিত হয়েছি মূর্তির ভাঙ্গার জন্য।

দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্যোগে আয়োজিত এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত অর্থসম্পাদক মাওলানা হাজী মোজাম্মেল হক।

বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় যুগ্ন মহাসচিব মাওলানা মঈনুদ্দীন রুহী, মাওলানা ক্বারী মুবিনুল হক, মাওলানা আ.ন.ম আহমদুল্লাহ, মাওলানা জয়নুল আবেদীন কুতুবী, মাওলানা মনছুর আলম, মাওলানা শেখ আবু তাহের, মাওলানা জুনাইদ জওহর, মাওলানা অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইউনুস, মাওলানা ইকবাল খলিল, মাওলানা মুহাম্মদ হানিফ,মাওলানা তকি ওসমানী, মাওলানা কুতুব উদ্দিন, মাওলানা সায়েম উল্লাহ, মাওলানা হাবিবুর রহমান হাকীম, মাওলানা জুনায়েদ বিন ইয়াহইয়া, মাওলানা কামরুল ইসলাম কাসেমী, মাওলানা মুহাম্মদ ইউসুফ,মাওলানা নাজমুস সাকিব, মাওলানা আবুল কাশেম, মাওলানা ফয়জুর রহমান ফয়েজ,মাওলানা মাহামুদুল হাসান খাকি, মাওলানা নাঈম উদ্দিন, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মাওলানা নুরুল ইসলাম প্রমূখ।

উক্ত বিক্ষোভ বক্তারা আরো বলেন, মহানবী সা.বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ আইন প্রণেতা হিসেবে স্বীকৃত। আমেরিকা সুপ্রিমকোর্টের সামনের ফটকে রাসূল সা. সর্বশ্রেষ্ঠ আইনপ্রণেতা হিসেবে ফলকে নাম আছে। ভারতের সুপ্রিমকোর্টেও আইন প্রণেতারূপে কোন মূর্তির অবস্থান নেই। কোন মুসলিম দেশেও এরূপ কোন নজির নেই। তাহলে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশ বাংলাদেশের সুপ্রিমকোর্টের সামনে কেন মূর্তি থাকবে। সুতরাং সুপ্রিমকোর্টের সামনে থেকে মূর্তি অপসারণ করতেই হবে। অন্যথায় জান-মাল দিয়ে হলেও ঈমান রক্ষায় ইসলামী জনতা গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে বাধ্য হবে, যা সরকারের জন্য শুভ হবে না।

এই সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে একের পর এক ইসলাম বিদ্ধেসী আইন হচ্ছে উল্লেখ্য করে  নেতৃবৃন্দ বলেন, পাঠ্যপুস্তকে ইসলাম বিরোধী পাঠ যোগ করা হয়েছে, সংবিধান থেকে ইসলামের মৌলিক বিধান তুলে দেয়া হয়েছে, নারী নীতিমালার নামে মা-বোনদেরকে ব্যহায়পনার দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে। সরকারের এই সব নীতির বিরুদ্ধে হেফাজত ইসলাম আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। এবার গ্রিক মুর্তির অপসারণের দাবীতে হেফাজতের কর্মসূচী চলছে। নেতৃবৃন্দরা বলেন, গ্রিক মুর্তি অপসারনের চলমান আন্দোলন বানচাল করতে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মামলায় হেফাজত নেতৃবৃন্দর বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করা হয়েছে। অবিলম্বে এ সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

নেতৃবৃন্দরা আরো বলেন, অতীতে শাপলা চত্তরের অবস্থান কর্মসূচী থেকে আমরা হেফাজত আমীরের নির্দেশে চলে এসেছি কিন্তু ইসলামী বিরোধী কার্যকলাপ যদি সরকার কঠোর হাতে দমন না করে এবং অবিলম্বে গ্রিক মুর্তি অপসারণ করা না হয় তাহলে আবারো শাপলা চত্তরে অবস্থান কর্মসূচী দেওয়া হবে। তৌহিদী জনতা এবার শাপলা চত্তর থেকে আর ফিরে আসবে না যতক্ষণ না সরকারের পতন হবে।

নিউজ হওয়ার সাথে সাথেই আপডেট পেয়ে যান আপনার ডিভাইসে, এখনি সাবষ্ক্রাইব করুন

২০০ মন্তব্য
  1. Alim Uddin বলেছেন

    ??????

  2. Sagar Kamal বলেছেন

    তুরস্কে মর্মর সাগরের পাশে।

  3. Sagar Kamal বলেছেন

    তেহরানে ইবনে সীনা।

  4. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

    তুরস্ক-ইরান বা অন্য কোন দেশ বা ব্যাক্তি মুসলামদের অনুকরনীয় না। একমাত্র কোরআন হাদিসই মুসলমানদের অনুসরণ হওয়া উচিত। অন্য কোন দেশ অন্যায় করছে বলে আমি কেন করবো। কোরআনে মুক্তিপুজা নিষিদ্ধ। এটা তোর জানার কথা। Sagar Kamal

    1. Sagar Kamal বলেছেন

      ওদের চেয়ে কোরাণ হাদিস বেশি বুঝার দরকার কি?

    2. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      কুরান হাদিস বেশি বুঝলেতো সমস্যা। যা আছে তা অনুসরণই যথেষ্ট।

    3. Sagar Kamal বলেছেন

      সেটাই তো হেপারা বুঝছে না।

    4. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      তাদের বুঝার দরকার নাই..তুই বুঝছিন ! বুঝাই যায় তোর অজ্ঞতা দেখে।

    5. এম আর হাসান বলেছেন

      মুক্তি নয় মূর্তি

  5. Sohel Sobhan বলেছেন

    মূর্তির জয় হল!

    1. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আপাতত দৃষ্টিতে তাই মনে হতে পারে..

  6. Sagar Kamal বলেছেন

    পাকিস্তানের লাহোরে বাদশাহি মসজিদের পাশে মেরীর মূর্তি।

    1. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      এর আগেও বলেছি কোরআন আর হাদিস মতে তোর এ যুক্তি ঠিকে না। এগুরো তোদের জন্য যারা কোনআন হাসিসের কথা মানে না। ইসলামে মুক্তিপুুজা নিষিদ্ধ।

    2. Sagar Kamal বলেছেন

      এই তো লাইনে আসছস। হা, পুজা ইসলামে নিষিদ্ধ। কিন্তুু কোন মুসলিম দেশ পূজার জন্য মূর্তি বানায় না। রাজনীতি নিয়ে লীগের সাথে পলিটিক্স করলে হেফাজত হাড়ে হাড়ে টের পাবে।

    3. এম আর হাসান বলেছেন

      মুক্তি নয় মূর্তি !
      একবার ভুল হয় কিন্তু বারবার একই শব্দ লিখলে তা ভুল নয়, অজ্ঞতা। আপনারা সাংবাদিকদের কাছে এমন ভুল/অজ্ঞতা আশা করি না।
      ধন্যবাদ ।

  7. Sagar Kamal বলেছেন

    সিরিয়ায় গাজী সালাউদ্দিনের মূর্তি

  8. Sagar Kamal বলেছেন

    দুবাই বুর্জ আব খলিফা প্রাঙ্গণে।

  9. Bahar Uddin বলেছেন

    হেফাজত আবার শাপলা চত্বরে জড়ো হওয়া হুমকি দিয়েছে এবং বলেছে আগে হেফাজত আমীরের নির্দেশে চলে এসেছে (আমরা জানি পুলিশের ঠেঙ্গানি খেয়ে পালিয়ে এসেছে)। কিন্তু এবার নাকি আসবে না যতক্ষণ সরকারের পতন না হয় !

    1. Sagar Kamal বলেছেন

      এবার কান ধরলেও ছাড়বে না।

  10. Jabed Rahim Moon বলেছেন

    ১৫ মিনিটের কথা কি ভুলে গেছে???

    1. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      আবার বিবানে 😛

  11. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

    কোর-আন ও হাদিসের আলোকে ছবি আঁকা কি হারাম? না কি হালাল?এরপর আপনার নামের শেষাংশের কারণ ব্যাখ্যা করেন @মিঃ শিল্পী আ…..যে কারনে কোর্টের সামনে গ্রীক মুর্তি হারাম,সেই একই কারনে….

    1. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      তুমি যে সাগর কামালের দালালী করো সেটা সবাই জানে। অবান্তর প্রশ্নের জবাব আমি দেই না। ইস্যেতে প্রশ্ন করো। সহিদুল..

    2. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      এটা অবান্তর কেন হবে?কোর্টের সামনে মুর্তি রাখা অর্থ মুর্তি পুজা হলে সেটা অবান্তর হয় না?ছবি আঁকা বা তোলা হারাম বললে অবান্তর হয়ে গেল!!আমি সাগরের দালালী করলে আপনি কি হেফাজতের অবান্তর দাবির দালালী করলেন না?Saiful Islam Shilpi Sagar Kamal

    3. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আমি কোন ব্যক্তির দালালী করি না।

    4. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      আচ্ছাাাাা,তাইলে দলের দালালী করেন,সেটা মেনে নিয়েছেন?আমার প্রশ্নে দালালীর কোন অংশ আছে,বুঝিয়ে দিন এবং একই সাথে কোর-আন ও হাদিসের আলোকে ব্যাখ্যা করে দিন যে আমার দ্বারা তোলা প্রশ্ন অবান্তর হলে হেপাজতের তোলা দাবি মারাত্মক রকমের অবান্তর দাবি হবে না কেন???

    5. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      তুমি যা মনে করো। নিজেরে যদি মুসলমান দাবি কর তাহলে কোন হাদিসের ব্যখা অন্যের কাছ থেকে চাওয়ার দরকার কি। কোরআনে কি কোথাই বলেছে মুর্তি পুজা করতে..? সাগরের সাথে সুর মিলানোই তোমার কাজ..?এসব দালালী ছেড়ে দে।

    6. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      কোর-আনের কোথাও কি বলেছে ছবি আঁকতে?

    7. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      যে মুর্তির বিরুদ্ধে আন্দোলন করা হচ্ছে,সেটা কেউ পুজা করে না,শুধুই শোভা বর্ধনের জন্য বানানো,ঠিক ছবি আঁকা যেমন……..

    8. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      সেটাও তো তোমার জানার কথা..

    9. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      শোভা বর্ধন মানে সুন্দর্য উপভোগ করা। এটাই পুজা। বানানোটাই গুনা।

    10. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      ওনের হেপাজুতের পক্ষে লিখতে মুঞ্চায় লিখুন না,আঁরে কিল্লাই হিতিয়্যার দালাল বলেন 😛

    11. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      ছবি আকাঁও জায়েজ নাই।

    12. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      তাইলে এবার কনছেন দেহি,বাংলাদেশের সকর কোর্টে স্বাক্ষীকে শপথ করানোর জন্য কি কি ধর্ম গ্রন্থ রাখা হয়?

    13. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      সেটা যারা সংবিধার রচিয়তা তাদের জিগাও..আমার মতে যে যার ধর্মগ্রন্থ বিশ্বাস করে তাকে তার ধর্মগ্রন্ত দিয়ে শপর করানো দরকার।

    14. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      তাহলে এবার বলেন,হেপাজুতের দাবি কি অবান্তর দাবি নয়?????কোর্টতো মসজিদ নয় যে যেটা শুধুই মুসলিমদের জন্য তৈরী!

    15. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      মুসলিম প্রধান দেশে কোরআন হাদিসের আইনেই বিচার চলবে, দেশ চলবে। এটা শুধু হেফাজতের কথা নয়। প্রকৃত মুসলমানরাই জানে। অবশ্য তোমার মত নব্য লীগ আর সাগর কামালের মত ধর্মনিরপেক্তার লেবাসধারীরা জানার কথা না।

    16. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      তাহলে হিন্দু খ্রিস্টান বৈদ্য এদের কে কি দেশ হতে বিতারিত করতে চান?বিম্পি ও তার দালালেরা বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার কোন ইস্যু না পেয়ে ধর্মকে পুঁজি করে আন্দোলনের ইস্যু বানানোটা মূলত ইসলাম ধর্মকে হেয় প্রতিপন্ন করা ছাড়া আর কিছুই নয়।

    17. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      এটা দিতে তুমি প্রমাণ দিলা তুমি নব্য লীগ। কারণ এখানে বিএনপি;র কোন বিষয় আসেনি। এসেছে হেফাজতের কথা। চোরের মনে পুলিশ পুলিশ একটা কথা প্রচলিত আছে। তুমি আগে বিএনপির নেতা ছিলা লীগ ক্ষমতায় এসে ভোট পাল্টইছো এটা সবাই জানে।

    18. Sohel Sobhan বলেছেন

      টেলিভিশন, মোবাইল এবং ইন্টারনেটও হারাম। আমি ব্যাখ্যা দিতে পারবো

    19. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      আবার বিম্পি ক্ষমতায় আসলে সেখানে যামু,কারন আঁর প্রিয় নেতা জনাব মওদুদ 😛

    20. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আপনি মুর্তি ইস্যূতে বির্তকে অংশ নেন।

    21. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      সে জন্যেই তোমাকে শুরুতে দালাল বলে আখ্যা দিলাম।

    22. Sohel Sobhan বলেছেন

      ইন্টারনেট থাকা মানে প্রাণীর অসংখ্য ছবি থাকা- পর্ণ থাকা, টিভিও একই দোষে দুষ্ট। টগ বাছতে গাঁ উজাড় হবে এবার। হারাম সব- মোবাইল হারামের বাপ!

    23. Sohel Sobhan বলেছেন

      সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা খেলনা, মন্দিরের দেব, দেবী এগুলোও হারাম?

  12. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

    বলা হচ্ছে গ্রিকমূর্তি ন্যায় বিচারের প্রতিক, যা কোন মুসলমান বিশ্বাস করলে ঈমান থাকবেনা, কারন ন্যায় বিচারের প্রতিক হলো পবিত্র কুরআন মজিদ।
    গ্রিক দেবি থেমিসকে রোমানরা পূজা করতো সেই থেমিসের মূর্তি কেন সুপ্রিম কোর্টের সামনে? এই মূর্তি তো দেশের স্বাধীনতা ও ঐতিয্যেরও বিরোধী, তাই এটা থাকতে পারবেনা।

    1. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      আপনি যেখানে,অর্থাৎ ফেসবুকে কমেন্টটা করেছেন,এটা একজন ইহুদীর তৈরী এবং আপনি এটা ব্যবহার করায় আপনার ব্যায়িত টাকার একটা অংশ সেই ইহুদীর এ্যাকাউন্টে চলে গেছে এবং উক্ত টাকা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত হবে।অতএব ফেবু ব্যবহার হালাল হতে পারে না।তবুও আমরা কেন করি?Sohel Sobhan ভাই বলুন তো,একটা হারাম জিনিস ব্যবহার করে আরেকটা হারাম কাজের প্রতিবাদ করা ঠিক কি না?

    2. Sohel Sobhan বলেছেন
    3. Sohel Sobhan বলেছেন

      তাছাড়া ইন্টারনেটেওতো সবকিছু হাতের কাছেই- নেংটা মানুষ, প্রাণীর ছবি। তাহলে ইন্টারনেটে সংযুক্ত থাকা পতিতালয়ে থেকে ইবাদত করবার মতন। এটা হারাম!

    4. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      পরবর্তি আন্দোলনের ইস্যুর জন্য জমা রাখতে পারবে 😛

    5. Sohel Sobhan বলেছেন

      মোবাইল পকেটে রাখা হারাম হবেনা কেন!? মোবাইলের ভিতর কমপক্ষে কয়েক হাজার প্রাণীর ছবি আছে! প্রাণীর ছবি পকেটে কি রাখা যাবে!? কেউ জানলে জানান!!!!

    6. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      আপনার স্ত্রী এবং মা উভয় মহিলা, থাকেনও একি ঘরে, আপনার স্ত্রীর সাথে আপনার সহবাস জায়েজ, আপনার মায়ের সাথে হারাম! এবার বলেন, উভয় মহিলা, থাকেন একি ঘরে তো একটা জায়েজ আরেকটা হারাম কেন?
      যুবাইর মাহমুদ Sayeed Hossain Gazi Hosain আপনারা কি বলেন

    7. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      ফেসবুক ব্যবহার করা কোন পর্যায়ের জায়েজের সাথে মেলে?স্ত্রীর সাথে সহবাস করা যেমন যায়েজ,তেমনটা?

    8. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      বাকিটা কইলাম না…..

    9. Sohel Sobhan বলেছেন

      হা হা হা… কি অদ্ভুত সুন্দর ব্যখ্যা… তাহলে মূর্তি থাকলে আমার জন্য হারাম আরেকজনের জন্য হালাল। ব্যাখ্যার স্টান্ডার্ড- সেইরকম! ?? @ মি: আহম্মদ উল্লা

    10. Sohel Sobhan বলেছেন

      ভিনেগার হারাম, তাইনা!?

    11. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      সুপ্রিম কোর্টের সামনে মুর্তি থাকা হারাম হলে সেটা বর্জনীয়,কারন সেটা একই ঘরে বউ ও মা থাকা এবং…..জায়েজ ও হারাম ব্যাখ্যা করেছেন।ফেসবুক ব্যবহার করে সরাসরি একজন ইহুদীকে আর্থিক ভাবে সহায়তা করাটা জায়েজ,কারন সেটা জায়েজ স্ত্রীর মতই 😛

    12. Sohel Sobhan বলেছেন

      দাসীর সাথে সেক্স কিন্তু হালাল। কিন্তু জিনা হারাম।

    13. Sagar Kamal বলেছেন

      ভাই, গ্রীক নারীরা/ দেবীরা কবে থেকে শাড়ী পরা ধরেছে একটু বলবেন? Anm Ahmad Ullah vye.

    14. Sohel Sobhan বলেছেন

      হা হা হা… নেমেসিসেরে এরা দেখে নাই। মাফ কইরা দেন। নেমেসিস চুল দিয়ে ঢেকে যদ্দুর দেখায়- কেয়া বাত!

    15. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      وَإِذْ قَالَ إِبْرَاهِيمُ رَبِّ اجْعَلْ هَـٰذَا الْبَلَدَ آمِنًا وَاجْنُبْنِي وَبَنِيَّ أَن نَّعْبُدَ الْأَصْنَامَ

      (ইব্রাহীম – ৩৫)
      যখন ইব্রাহীম বললেনঃ হে পালনকর্তা, এ শহরকে শান্তিময় করে দিন এবং আমাকে ও আমার সন্তান সন্ততিকে মূর্তি পূজা থেকে দূরে রাখুন।
      Sagar Kamal ভাই, ওদের চেতনা উতলাইছে তাই মূর্তি ইনপুট কইরা শাড়ি পরাইছে।

    16. Sohel Sobhan বলেছেন

      জাদু টোনা নিয়ে প্রশ্ন ছিলো

    17. Sohel Sobhan বলেছেন
    18. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      কি প্রশ্ন?

    19. Sohel Sobhan বলেছেন

      জাদুটোনা বলে কি কিছু আছে? থাকলে জাদু দিয়ে মুর্তি ভাংগার জন্য জাদুর ব্যবহার অনুরোধ করতাম। অযথা এতোগুলা মানুষ খাটলে দেশে মুর্তির গুরুত্ব আরো বেড়ে যাবে!

    20. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      অবশ্যই আছে তবে ইসলামে জাদুটোনা হারাম।

    21. Sohel Sobhan বলেছেন

      অবশ্যই আছে!!?? সেটা বাস্তবে কোনো প্রমান এ যুগে দেওয়া দুরূহ! প্রশ্নটা হলো একটা, দুইটা এই জাদুর মারফত খাইয়া ফেললে অনেক সহজ হইত এদেশে জীবনধারণ! কিন্তু এ হেডাম কেউ দেখাইতে পারতেছেনা। আফসোস!

    22. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      অশিক্ষিত এবং স্বল্প শিক্ষিত জাতির কাছে সাইন্সের খেলাকে জাদুটোনা মনে হয়।আমি বেশ কয়েকটা জাদু জানি,এই যেমন ফুঁ দিয়ে রুমালে আগুন জ্বালানো 😛

  13. Alamgir Apu বলেছেন

    একজন বললেন, আল্লাহর কোন আকার নাই, কেউ যদি আকার আছে বলে তা শিরক হবে বলেন, তাহলে আল্লাহর একটা ঘর থাকবে কেন? আল্লাহতো সর্বত্র বিরাজমান। এ যুক্তির উত্তর কি?

    1. Sohel Sobhan বলেছেন

      আপ্নে কাফের

    2. Alamgir Apu বলেছেন

      কাফের বুঝলাম, কিন্তু লোকটাকে কি জবাব দিব বলেন?

    3. Sohel Sobhan বলেছেন

      হা হা হা… জবাব না থাকলেই আমরা কাফের বলি। বুঝতে হবে?

    4. Sohel Sobhan বলেছেন

      একজন জিগায় চাঁদে গেলে কেবলা কোনদিকে হবে? আরেকজন জিগায় মহাশুন্যে কোন মুসলমান গেলে পাঁচ ওয়াক্ত ঠিক করবে কিভাবে? এরা কাফের নাতো কাফের কে। সবচেয়ে বড় কথা হযরে আসওয়াদতো একটা পাথর… ওটাকেও মুর্তিপুজার সমতুল্য বলে। কত্তবড় জাহান্নামী চিন্তা করতে পারেন!!!?

    5. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      Alamgir [email protected] আপনি কি নিজেকে মুসলমান দাবী করেন কিনা সেটা আগে উত্তর দেন। যদি মুসলমান দাবী করেন তাহলে নিজের ধর্ম নিজের আল্লাহ সম্পর্কে এ ধরণের অবান্তর প্রশ্ন করতে পারতেন না। আল্লাহর কোন আকার নাই আর মসজিদ আল্লাহর ঘর এ কথা গুলো কোন ব্যাক্তির না। এগুলো কোরআনের কথা। আর কোরনের এই কথা নিয়ে আপনি সন্দেহ পোষন করেন কিনা..?

    6. Sagar Kamal বলেছেন

      আরো বড় জাহান্নামিরাও আছে। ওরা বলে, মসজিদে গিয়ে জুতা/ছাতি নিয়ে টেনশনে থাকতে হবে কেন?

    7. Alamgir Apu বলেছেন

      আমি মুসলিম। কিন্তু এই প্রশ্নটা কি অবান্তর ? কেউ আপনাকে জিজ্ঞেস করলে আপনি যুক্তি কি দিয়ে বুঝাবেন-সেটা বলুন। আমিও বুঝতে চাই। আগে নিজে বুঝি তারপর অন্যকে বুঝাবো। আমি ধর্ম সম্পর্কে অতো জ্ঞানী নই।

    8. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      মূর্তি থাকলেও কি কোরআন থাকলেও কি?তোমরা এ নিয়ে প্রশ্ন তোলার কে?তোমরা না মুসলিম না হিন্দু?তোমরাতো তৃতীয় লিঙ্গ নাস্তিক।

    9. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আপনি যদি মুসলমান হোন, তাহলে আপনার কোরআন কি বলছে সেটা আপনার জানা উচিত ছিল। এভাবে পাবলিক প্লেসে নিজের অজ্ঞতার পরিচয় দেয়াটা ঠিক হয়নি। আপনার এ প্রশ্নটা একজন অন্য ধর্মের লোক জানতে চাইতে পারে। Alamgir Apu

    10. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      প্রশ্নটা মোটেই অবান্তর না। মুসলমান হিসেবে আপনার না জানাটা অজ্ঞতা। তবে এ প্রশ্নে জবাব আমি দেবো।

    11. Sohel Sobhan বলেছেন

      Md Nazmus Sakib

    12. Alamgir Apu বলেছেন

      Saiful Islam Shilpi হয়ত আমি না জানতে পারি কিন্তু আমার ধর্ম এতো লুকোচুরি খেলে সৃষ্টি হয়নি। লুকানোর কথা বলবেন কেন? ধর্ম কি লুকানোর কিছু? আমি জানি না তা স্বীকার করতে সমস্যা কি? না জানিয়ে ফতোয়া দেয়া কিংবা মুখে পডর পডর করা কি ঠিক?

    13. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      আপনার ধর্ম সম্পর্কে এনি প্রশ্ন আমায় করুন।জবাব দিতে সদা প্রস্তত।#আলমগির

    14. Sagar Kamal বলেছেন

      Md Nazmus Sakib vye আপনি জুমাবারে প্রাণীর মূর্তির সামনে ছবি তোলেন আবার মূর্তি বিরোধি কথা বলেন।।

    15. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      কিরে সোহেল! তুমি আবার আমার প্রশ্নকে সিম্বল দিয়ে ভিন্ন রাস্তা ধরলে কেন?

    16. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      সে জন্যইতো বল্লাম আপনি যে বিষয়ে জানেন না সে বিষয়ে নিরব থেকে জানার চেষ্টােই ভালো। না জানা বিষয় নিয়ে নিজের আল্লাহ সম্পর্কে আল্লাহর ঘর সম্পর্কে এভাবে প্রশ্ন করাটা কি ঠিক হলো..? ধর্ম সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকলে আপনি কোরআন হাদিস পড়ুন ধমীয় শিক্ষকের কাছে যান।

    17. Sohel Sobhan বলেছেন

      Md Nazmus Sakib Jokes valo bolen apni! eita ki bollen….apni shob uttar diben mane? I don’t know এইটার বাংলা বলেন, তারপর প্রশ্ন করবো

    18. Alamgir Apu বলেছেন

      Md Nazmus Sakib উপরের প্রশ্নটির উত্তর দেন। অসীম সওয়াব পাবেন। জ্ঞান দান করে কেউ দেউলিয়া হয় না। আমি জানতে চাই।

    19. Sohel Sobhan বলেছেন

      জাদু টোনা নিয়ে প্রশ্ন ছিলো

    20. Sohel Sobhan বলেছেন

      Md Nazmus Sakib

    21. Sohel Sobhan বলেছেন

      লেদা পুয়া Sagar Kamal Fuck off this shit…..they will rather suck their own dick to outdo anything ….logic is completely absent…so give up! TA TA……

    22. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      আরে সোহেল মিয়া তুমিই কইরা দেখাওনা!আবুলের খালাত ভাই।#সেহেল

  14. Md Nazmus Sakib বলেছেন

    বান্দরের নাতি পুতিরা! কি হলো?
    মূর্তি নিয়ে এত চুলকানি কেন??

    1. Sohel Sobhan বলেছেন

      ভেরী গুড কোয়েশ্চেন???

    2. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      দিলাম বাঁশ,বাঁশ খাইয়া এত্ত খুশী কেনরে সোহেল?মাথায়তো ভালই গোবর দেহি,এত পঁচা বুদ্ধি নিয়ে ঘুমাও কেমতে??

    3. Sohel Sobhan বলেছেন

      ha ha ha….galagali koren keno?

    4. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      পাগল!!এইটা গালাগালি হলে,
      গালাগালকেতো কিছুক্ষণ পর মন্ত্র পাঠ বলবা।#সোহেল

    5. Sohel Sobhan বলেছেন

      পারেনও বটে…আপ্নের অনেক রাগ। সরি আপ্নাকে রাগানোর ইচ্ছা আমার নাই

  15. Gazi Hosain বলেছেন

    Saiful ভাই প্রথম আপনার কাছে একটা প্রশ্ন আপনি কি কোর্টের সামনে মূর্তি রাখার পক্ষে নাকি বিপক্ষে?? যদি পক্ষে হোন তবে সেটা কেনো মানে কোন কারনে রাখাটা প্রয়জন মনে করেন??

  16. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

    আপনি আমাকে এ প্রশ্ন করার আগে আমার কমেন্টগুলো পড়ে আসুন।

    1. Gazi Hosain বলেছেন

      সরি বুঝছি এবার দেখে যান শুধু

  17. Md Nazmus Sakib বলেছেন

    মূর্তি থাকবে ভাষ্কর্য হিসেবে না কোরান থাকবে এ নিয়ে তোমরা প্রশ্ন তোলার কারা??
    তোমরাতো মুসলিমও না হিন্দুও না।তোমাগো এত মাথা ব্যথা কেন??তোমারাতো তৃতীয় লিঙ্গ নাস্তিক।

  18. Md Nazmus Sakib বলেছেন

    কে জানে?মুখে বলো কোন ধর্ম মানিনা,আর তলে তলে করো ইহুদী খৃষ্টানের দালালি!

  19. Gazi Hosain বলেছেন

    Alim Uddin Sagar Kamal Sohel Sobhan Bahar Uddin Jabed Rahim Moon সহিদুল ইসলাম সবার সাথে তর্কে না গিয়ে আমার এ কমেন্টে আসুন।
    আপনাদের কাছে প্রশ্ন,, কোন কারনে কোর্টের সামনে মূর্তি রাখার পক্ষে আপনারা???

    1. Alim Uddin বলেছেন

      আমরা পক্ষে না কারন আল্লাহ রাসুল এসে সর্ব প্রথম মু্তি্ ধ্বংস করেছিল। এই হুজুর গুলা টাকা খেয়ে লুকিয়ে যায় , হাসছি ঐ জন্য যে এরা আবার টাকা খাওয়ার ধান্ধায় মেতে উঠেছে।

    2. Sagar Kamal বলেছেন

      শাপলা চত্বর ছেড়ে যাবার সময় আবার কান ধরে শপথও করেছিল, আর এসব করবে না।

    3. Gazi Hosain বলেছেন

      গুড তাহলে আপনার সাথে কথা না কথা হবে সাগর আর সোহেল সাহেবের সাথথে।

    4. Sohel Sobhan বলেছেন

      আমিও পক্ষে বিপক্ষে না… কিন্তু ওটা ভাংগার জন্য আন্দোলন দেখে মর্মাহত হই- আমাদের অধপতন দেখে। জাস্ট একটা রাজনৈতিক খেলা!

    5. Gazi Hosain বলেছেন

      সাগর সাহেব কমেন্ট গুলো দেখেন আর যদি এক মায়ের বুকের দুধ খেয়ে থাকেন তবে উঃ যুক্তি খন্ডন করুন। বেহুদা তর্কে জড়াবেন না

    6. Gazi Hosain বলেছেন

      নো এটা রাজনৈতিক খেলা না এটা আপনার ভুল ধারনা

    7. Sohel Sobhan বলেছেন

      এ স্টান্ডার্ডের যুক্তি অনেক আগে প্রচলিত ছিলো। এখন এগুলো অবান্তর। একটাও যুক্তির মুল্যায়নে বিবেচ্য না। আপনি কি যুক্তি দিলেই ফেসবুক ছাড়বেন!? ইন্টারনেট ছাড়বেন!? মোবাইল ছাড়বেন? যুক্তিবিদ্যা বড় বাজে জিনিস- কেউ যদি প্রশ্ন করে সৃষ্টিকর্তা কি পানিতে ভাইসা আসছে?! উনারেওতো কেউ না কেউ বানাইতে হবে। সেক্ষেত্রে সুরা ইখলাস শুনালে যুক্তি হয়না অসহায় আস্ফালন হয়। জাদুটোনা নাই যুক্তি দিয়ে প্রমান করলেও তো আমরা বিশ্বাস করবোনা! অতএব যুক্তি বাদ দেন। নিজেদের গুটি বানইয়া কি লাভ!

    8. Sohel Sobhan বলেছেন

      আমিতো মনে করি বাংলাদেশ ভারত পাকিস্তান এগুলোর বর্ডারই দরকার নাই। আমরা আবার মানুষ হইতে চাই।

    9. Alim Uddin বলেছেন
  20. Sagar Kamal বলেছেন

    Md Nazmus Sakib vye নিজেই তো প্রাণীর মূর্তির সাথে ছবি তোলেন।

    1. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      ওটা পূজার প্রাণী গু-বাচুর নাকি?
      আর মূর্তিতো প্রাণিই না।মাটির বানানো পূজার একটি পাত্র।

    2. Gazi Hosain বলেছেন

      আমার প্রশ্নের উঃ দিন কামাল সাহেব

    3. Sagar Kamal বলেছেন

      এইতো লাইনে আসছেন। কোর্টের সামনের মূর্তিটিও পুজার জন্য নয়। Md Nazmus Sakib vye.

    4. Sohel Sobhan বলেছেন

      গুরে পোয়া

    5. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      পূজা করতো পৌত্তলিকরা, আর তাকে মানতো ন্যায় বিচারের প্রতীক হিসেবে।মাটি কি করে ন্যায় বিচারের প্রতীক হয়??
      বককে কেউ পূজা করেছে এমন কোন ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসে আছে কি??
      লাইনে আসতে যাব কেন?
      সত্যকে উদ্ভাসিত করবই করবো ইনশাআল্লাহ্!!

    6. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      কোটের সামনে মুর্তিকে পুজা না করলে তাহলে কেন রাখলো ..? সাগর..? নিশ্চয় সন্মান দেখানোর উদ্দ্যেশে তাইতো..? Sagar Kamal

    7. Sagar Kamal বলেছেন

      ওটা ন্যায় বিচারের আন্তর্জাতিক প্রতীক, পূজোর প্রতিমা নয়।

    8. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      একটি নিথর পাথরের টুকরো ন্যায় বিচারের প্রতীক কেমতে হয়??
      পাগলের বুঝও এর চেয়ে ভাল।

    9. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      কোন মুসলমান বিশ্বাস করতে পারেনা Sagar Kamal ভাই।

    10. Sagar Kamal বলেছেন

      প্রতীক কখনো প্রাণসম্পন্ন হয় না। আইন কোন কিছু মাপার সময় পক্ষপাতিত্ব করে না। নেমেসিসের মূর্তি সেটার শৈল্পিক প্রতীক। Md Nazmus Sakib vye.

    11. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      ওরা মূর্তিকে সিম্বল বানিয়েছিল ওদের উপাস্য মূর্তি বলে।
      আমাদের উপাস্যতো আর মূর্তি না বাবু!সো,,,আমরা গ্রিক মূর্তিকে কেন ন্যায় বিচারের প্রতীক মানতে যাবো?#সাগু

    12. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      ওরা মূর্তিকে সিম্বল বানিয়েছিল ওদের উপাস্য মূর্তি বলে।
      আমাদের উপাস্যতো আর মূর্তি না বাবু!সো,,,আমরা গ্রিক মূর্তিকে কেন ন্যায় বিচারের প্রতীক মানতে যাবো?#সাগু

    13. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      জাযাকাল্লাহ Md Nazmus Sakib

    14. Sagar Kamal বলেছেন

      ঐ মূর্তি পৃথিবীর কোথাও আর উপাস্য নয়, কিন্তু ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রায় সব দেশের আদালতেই এটিকে প্রতীক হিসেবে ধরা হয়। ডাক্তারদের প্রেসকিপ্সনে Rx যেমন সারা পৃথিবীর ডাক্তাররা লিখে।সেটাও গ্রীক প্রতীক।

    15. Sagar Kamal বলেছেন

      আপনাদের মূর্তি দেখলেই কি পূজা করতে ইচ্ছে করে? কই আমার তো সেরকম কখনো ইচ্ছে করে না।

    16. Gazi Hosain বলেছেন

      Sagar Kamal Sohel Sobhan এখানে বদনা পারবেজ এর জায়গায় আপনারা নিজেদেরকে ধরে নিন। যদিও এটি ছিলো কাল্পনিক চরিত্র কিন্তু আপনারা বদনা পারবেজ কে বাস্তব করে দিলেন। আপনাদের দেওয়া ফটো (কমেন্ট) গুলার উঃ মিলিয়ে নিন।।
      পারভেজ আলম নামক এক বদনা আতেল দাবি করছে-
      মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গনে মহানবীর একটা প্রতিকৃতি আছে। ১৯৯৭ সালে মুসলমানরা মুর্তিটি অপসারণের অনুরোধ জানায়। মার্কিন আদালত থেকে তা নাকচ করে বলা হয় যে, মুহাম্মদকে একজন আইনপ্রনেতা হিসাবে সম্মান দেয়ার জন্যেই তার প্রতিকৃতিটি রাখা হয়েছে, এখানে মুর্তিপুজাকে উৎসাহিত করার কোন উদ্দেশ্য নাই।

      বদনা আতেল এই কথা বলতে গিয়ে কয়েকটি কথা এড়িয়ে গেছে-

      ১) ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত মার্কিন সুপ্রীম কোর্টের মূর্তিটি সরানো হয়নি, কিন্তু নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে Appellate Courthouse অবস্থিত মুসলমানদের শেষ নবীর মূর্তিটি কিন্তু মুসলমানদের বিরোধীতার মুখে সরানো হয়েছিলো। ১৯৫৫ সালে মূর্তিটি সরানো হয়। তারমানে দেখা যাচ্ছে, শুধু বাংলাদেশে হেফাজত নয়, সারা বিশ্বের মুসলমানরাই মূর্তির বিরোধীতা করে। সেটা ওয়াশিংটন ডিসি হোক কিংবা নিউইয়র্ক কিংবা বাংলাদেশ। এবং সেটা শুধু পূজার মূর্তি নয়, বরং সকল মূর্তির ক্ষেত্রেই ।

      ২) মার্কিন সুপ্রীম কোর্টে শুধু মুসলমানদের শেষ নবী নয়, ১৮ জন ব্যক্তিত্বকে শ্রেষ্ঠ আইন প্রণেতা হিসেবে সম্মান দেখিয়ে তাদের মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে। এরা হলো-
      মুসলমানদের শেষ নবী
      মুসা নবী,
      Menes (c. 3200 B.C.),
      Hammurabi (c. 1700s B.C.),
      Solomon (c. 900s B.C.),
      Lycurgus (c. 800 B.C.)
      Solon (c. 638 – 558 B.C.)
      Draco (c. 600s B.C)
      Confucius (551 – 478 B.C.)
      Octavian (63 B.C. – 14 A.D.) or Augustus.
      Justinian (c. 483 – 565)
      Charlemagne (c. 742 – 814)
      King John (1166 – 1216)
      Louis IX (c. 1214 – 1270)
      Hugo Grotius (1583 – 1645)
      Sir William Blackstone (1723 – 1780)
      John Marshall (1755 – 1835)
      Napoleon (1769 – 1821)
      মজার বিষয় হচ্ছে, এই ১৮ জন প্রত্যেক্যেই বাস্তব চরিত্র এবং এখানে প্রত্যেকে আইন প্রণেতা হিসেবে সম্মান দেয়া হয়েছে, কিন্তু তাদের কাউকেই কোন ধর্মের প্রতিনিধিত্বকারী হিসেবে প্রকাশ করা হয়নি। অথচ বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের সামনে যে মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে, সেটা বাস্তব কোন চরিত্র নয়, বরং একটি কাল্পনিক চরিত্র, যার সাথে গ্রিক বা রোমান প্যাগান ধর্মবিশ্বাস জড়িত। সে হিসেবে ১৮ জন বাস্তব আইন প্রণেতার সাথে কাল্পনিক প্যাগান চরিত্র দেবী থেমিস বা দেবী জাস্টিসিয়ার কোন তুলনা হতে পারে না।

      বদনা পারভেজ বলেছে-
      “বাংলাদেশের কালচারে, বা বাঙালি মুসলিমের কালচারে কি গ্রিক সভ্যতার প্রভাব নাই? আলবত আছে, প্রবলভাবেই আছে। গোটা মুসলিম দর্শন ও ধর্মতত্ত্ব প্রবলভাবে গ্রিক সভ্যতার কাছে ঋণী। গ্রিক সভ্যতা থেকে আগত সকল জিনিসকে বিদেশী সংস্কৃতি ভেবে বিরোধিতা করতে গেলেতো মুসলিম দুনিয়ায় হাজার বছরের ইউনানি (গ্রিক) চিকিৎসার চর্চাকারী (বাংলাদেশে এখনো আছে) ইবনে সিনা, আল রাজিদেরকেও পরিহার করতে হবে। তাদের নামে হাসপাতাল বানানো উচিত হবে না। স্কুলে পিথাগোরাসের উপপাদ্য শেখানোও বাদ দিতে হবে।”
      এর উত্তরে বলতে হয়- বাঙালী মুসলিম কালচারে গ্রিক প্যাগানিজমের কোন প্রভাব নাই। প্যাগান ধর্ম থেকে বাংলাদেশের মুসলমান কেন, কোন মুসলমানই কোন কিছু গ্রহণ করে নাই। গায়ের জোরে অনেকে দাবি করতে পারে, কিন্তু বাস্তবিক অর্থে কোন প্রমাণ তারা দিতে পারবে না। কারণ মুসলমানদের ধর্মের মূল তত্ত্বই প্যাগানদের সাথে সাংঘর্ষিক। আর চিকিৎসাবিদ্যা কিংবা জ্যামিতি শিক্ষা কি ধর্মবিশ্বাস হয়ে গেলো ? বদনা পারভেজ তো মুসলমানদের থেকে প্রাপ্ত অনেক জ্ঞান ব্যবহার করে, তবে সে ইসলাম ধর্মবিশ্বাস মানে না কেন ? গ্রিক শিক্ষাদীক্ষার অনেক কিছু নিলে তাদের পাগ্যান ধর্মবিশ্বাস বা দেবীতে বিশ্বাসও গ্রহণ করতে হবে, এটা কোথায় আছে ?

    17. Gazi Hosain বলেছেন

      আসলে বদনা পারভেজদের কথা হচ্ছে, ইসলাম বিদ্বেষ। মানে ১৪০০ বছর আগের ইসলামের বিরোধীতা করতে গিয়ে যদি ৩ হাজার বছর আগের কুসংস্কারাচ্ছন্ন বর্বর প্যাগান ধর্মকেও মানতে হয় তবুও তারা সেটা মানতে সে রাজি, শুধু ইসলাম বিরোধীতা হলেই চলবে।
      Sagar Kamal সাহেব ওরুপে বদনা পারবেজ আপনার উঃ

    18. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

      আপনার এই প্রশ্নের উত্তর আমি দিলাম তো! তারপরেও Gazi Hosain ভাইয়ের কমেন্ট পড়েন বুঝতে কষ্ট হবেনা Sagar Kamal ভাই,

    19. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      ওদের মাথায় গোবর ছিল বলে,
      আমাদের মাথায়ও গোবর নিয়ে হাঁটবো নাকি?প্রশ্নেই উঠেনা,একটি মানুষের হাতে বানানো নিস্তবদ্ধ পাথর টুকরো।তুমি সিম্বল মানো
      আমরা মাননবোনা,আর আমরা তা ভাঙ্গবই ভাঙ্গবো।
      আমাদের কেন পূজা করতে ইচ্ছে করবেরে??করনা বলেইতো ভাঙ্গতে চাই।

    20. Sohel Sobhan বলেছেন

      হযরে আসওয়াদের কথাওতো কোরআনে নাই। আগে ওইটিকে পুজা করা হতো। বলেনতো যুক্তি কি বলে!?

    21. Gazi Hosain বলেছেন

      জনাব সোহেল আপনি কোরআন মানেন??

    22. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      অবশ্যই হাজরে আসওয়াদের কথা কোরানে আছে।দলিল লাগবে??

    23. Sohel Sobhan বলেছেন

      তাইতো বলি! এই অবস্থা????

    24. Sagar Kamal বলেছেন

      ওটা কি পাথর নয়? সাকিব ভাই।

    25. Sohel Sobhan বলেছেন

      আপনারা ফেসবুকে লেখালেখি করছেন, এটার পক্ষে দলিল কি?

  21. Himu Ripon বলেছেন

    মনে প্রাণে বিশ্বাস করি সুপ্রিম কোর্ট একটা পবিএ জায়গা|||আর মসজিদ আল্লাহ’র ঘর|||কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের সামনে গ্রিক মূর্তি রাখা যাবে না এটার মানে টা কী?যারা আজকে এটা অপসারণের কথা বলছে তারা কে?এই দেশ পরিবর্তনে তাদের ভূমিকা কী?এই দেশ যখন স্বাধীন হয়েছে অনেক হিন্দু,বৌদ্ধ জীবন দিয়েছে|এই দেশের মাটির সাথে এখনো তাদের রক্ত লেগে আছে..তাহলে আজ যারা গ্রিক মূর্তি অপসারনের দাবিতে আন্দোলন করছে,তারা কি করে এই দেশে বাস করছে?

    1. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      শুধু বাংলাদেশ কেন?ভারতবর্ষের ইতিহাস রাস্তার বই থেকে নয়,বাস্তব সম্বলিত ইতিহাস পড়ে নিও,খুঁজে পাবা কার অবদান কতটুকু ছিল।

    2. Himu Ripon বলেছেন

      নারে ভাই আর বেশি কিছু খুজঁতে যাবো না…|তখন আবার কেচোঁ খুড়ঁতে সাপ বেরিয়ে আসবে|||

    3. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      দংশনের ভয়তো থাকার কথায়।
      মিথ্যে পথে যে হাটছেন।

  22. Gazi Hosain বলেছেন

    Sagar Kamal Sohel Sobhan এখানে বদনা পারবেজ এর জায়গায় আপনারা নিজেদেরকে ধরে নিন। যদিও এটি ছিলো কাল্পনিক চরিত্র কিন্তু আপনারা বদনা পারবেজ কে বাস্তব করে দিলেন। আপনাদের দেওয়া ফটো (কমেন্ট) গুলার উঃ মিলিয়ে নিন।।
    পারভেজ আলম নামক এক বদনা আতেল দাবি করছে-
    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গনে মহানবীর একটা প্রতিকৃতি আছে। ১৯৯৭ সালে মুসলমানরা মুর্তিটি অপসারণের অনুরোধ জানায়। মার্কিন আদালত থেকে তা নাকচ করে বলা হয় যে, মুহাম্মদকে একজন আইনপ্রনেতা হিসাবে সম্মান দেয়ার জন্যেই তার প্রতিকৃতিটি রাখা হয়েছে, এখানে মুর্তিপুজাকে উৎসাহিত করার কোন উদ্দেশ্য নাই।

    বদনা আতেল এই কথা বলতে গিয়ে কয়েকটি কথা এড়িয়ে গেছে-

    ১) ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত মার্কিন সুপ্রীম কোর্টের মূর্তিটি সরানো হয়নি, কিন্তু নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে Appellate Courthouse অবস্থিত মুসলমানদের শেষ নবীর মূর্তিটি কিন্তু মুসলমানদের বিরোধীতার মুখে সরানো হয়েছিলো। ১৯৫৫ সালে মূর্তিটি সরানো হয়। তারমানে দেখা যাচ্ছে, শুধু বাংলাদেশে হেফাজত নয়, সারা বিশ্বের মুসলমানরাই মূর্তির বিরোধীতা করে। সেটা ওয়াশিংটন ডিসি হোক কিংবা নিউইয়র্ক কিংবা বাংলাদেশ। এবং সেটা শুধু পূজার মূর্তি নয়, বরং সকল মূর্তির ক্ষেত্রেই ।

    ২) মার্কিন সুপ্রীম কোর্টে শুধু মুসলমানদের শেষ নবী নয়, ১৮ জন ব্যক্তিত্বকে শ্রেষ্ঠ আইন প্রণেতা হিসেবে সম্মান দেখিয়ে তাদের মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে। এরা হলো-
    মুসলমানদের শেষ নবী
    মুসা নবী,
    Menes (c. 3200 B.C.),
    Hammurabi (c. 1700s B.C.),
    Solomon (c. 900s B.C.),
    Lycurgus (c. 800 B.C.)
    Solon (c. 638 – 558 B.C.)
    Draco (c. 600s B.C)
    Confucius (551 – 478 B.C.)
    Octavian (63 B.C. – 14 A.D.) or Augustus.
    Justinian (c. 483 – 565)
    Charlemagne (c. 742 – 814)
    King John (1166 – 1216)
    Louis IX (c. 1214 – 1270)
    Hugo Grotius (1583 – 1645)
    Sir William Blackstone (1723 – 1780)
    John Marshall (1755 – 1835)
    Napoleon (1769 – 1821)
    মজার বিষয় হচ্ছে, এই ১৮ জন প্রত্যেক্যেই বাস্তব চরিত্র এবং এখানে প্রত্যেকে আইন প্রণেতা হিসেবে সম্মান দেয়া হয়েছে, কিন্তু তাদের কাউকেই কোন ধর্মের প্রতিনিধিত্বকারী হিসেবে প্রকাশ করা হয়নি। অথচ বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের সামনে যে মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে, সেটা বাস্তব কোন চরিত্র নয়, বরং একটি কাল্পনিক চরিত্র, যার সাথে গ্রিক বা রোমান প্যাগান ধর্মবিশ্বাস জড়িত। সে হিসেবে ১৮ জন বাস্তব আইন প্রণেতার সাথে কাল্পনিক প্যাগান চরিত্র দেবী থেমিস বা দেবী জাস্টিসিয়ার কোন তুলনা হতে পারে না।

    বদনা পারভেজ বলেছে-
    “বাংলাদেশের কালচারে, বা বাঙালি মুসলিমের কালচারে কি গ্রিক সভ্যতার প্রভাব নাই? আলবত আছে, প্রবলভাবেই আছে। গোটা মুসলিম দর্শন ও ধর্মতত্ত্ব প্রবলভাবে গ্রিক সভ্যতার কাছে ঋণী। গ্রিক সভ্যতা থেকে আগত সকল জিনিসকে বিদেশী সংস্কৃতি ভেবে বিরোধিতা করতে গেলেতো মুসলিম দুনিয়ায় হাজার বছরের ইউনানি (গ্রিক) চিকিৎসার চর্চাকারী (বাংলাদেশে এখনো আছে) ইবনে সিনা, আল রাজিদেরকেও পরিহার করতে হবে। তাদের নামে হাসপাতাল বানানো উচিত হবে না। স্কুলে পিথাগোরাসের উপপাদ্য শেখানোও বাদ দিতে হবে।”
    এর উত্তরে বলতে হয়- বাঙালী মুসলিম কালচারে গ্রিক প্যাগানিজমের কোন প্রভাব নাই। প্যাগান ধর্ম থেকে বাংলাদেশের মুসলমান কেন, কোন মুসলমানই কোন কিছু গ্রহণ করে নাই। গায়ের জোরে অনেকে দাবি করতে পারে, কিন্তু বাস্তবিক অর্থে কোন প্রমাণ তারা দিতে পারবে না। কারণ মুসলমানদের ধর্মের মূল তত্ত্বই প্যাগানদের সাথে সাংঘর্ষিক। আর চিকিৎসাবিদ্যা কিংবা জ্যামিতি শিক্ষা কি ধর্মবিশ্বাস হয়ে গেলো ? বদনা পারভেজ তো মুসলমানদের থেকে প্রাপ্ত অনেক জ্ঞান ব্যবহার করে, তবে সে ইসলাম ধর্মবিশ্বাস মানে না কেন ? গ্রিক শিক্ষাদীক্ষার অনেক কিছু নিলে তাদের পাগ্যান ধর্মবিশ্বাস বা দেবীতে বিশ্বাসও গ্রহণ করতে হবে, এটা কোথায় আছে ?

  23. Gazi Hosain বলেছেন

    আসলে বদনা পারভেজদের কথা হচ্ছে, ইসলাম বিদ্বেষ। মানে ১৪০০ বছর আগের ইসলামের বিরোধীতা করতে গিয়ে যদি ৩ হাজার বছর আগের কুসংস্কারাচ্ছন্ন বর্বর প্যাগান ধর্মকেও মানতে হয় তবুও তারা সেটা মানতে সে রাজি, শুধু ইসলাম বিরোধীতা হলেই চলবে।

  24. Gazi Hosain বলেছেন

    Sagar Kamal Sohel Sobhan আসুন দেখে যান কথা হবে মূর্তি নিয়ে অন্য কিছু নিয়ে না।
    অনেকে বলে-
    সুপ্রীম কোর্টে গ্রিক দেবীর মূর্তি থাকবে, কারণ গ্রিক দেবীর মূর্তি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।
    ১লা বৈশাখে মঙ্গলশোভাযাত্রা হবে, কারণ মঙ্গলশোভাযাত্রা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।
    রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিতে হবে, কারণ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।
    পাঠ্যপুস্তককে হিন্দুত্ববাদ বাদ দেওয়া যাবে না, কারণ হিন্দুত্ববাদ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা

    উপরের দাবিগুলো যারা করছে, তারা কি দাবির স্বপক্ষে, মানে- গ্রিক দেবীর মূর্তি, মঙ্গলশোভাযাত্রা, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করা কিংবা পাঠ্যপুস্তকে হিন্দুত্ববাদ যুক্ত করা যে ‍মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, সেটা কি তারা দেখাতে পারবে ? পারবে কি তার স্বপক্ষে কোন দলিল-প্রমাণ উপস্থাপন করতে ??

    আসুন আপনাদের দেখাই- ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কখনই মূর্তি-মঙ্গলশোভাযাত্রা-রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল কিংবা পাঠ্যপুস্তকে হিন্দুত্ববাদ যোগ করার চেতনা ছিলো না, বরং সেগুলোর বিরোধী চেতনা মানে ইসলামী চেতনাই ছিলো ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা-

    যেমন- বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ দলিলপত্রের তৃতীয় খণ্ডের ১৬-১৯ নং পৃষ্ঠায় দেখা যায়- ১৯৭১ সালের ১৪ই এপ্রিল বাংলাদেশ সরকার প্রচার দপ্তর থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম দিয়ে প্রচারিত “স্বাধীন বাংলার সংগ্রামী জনগণের প্রতি বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশাবলী“ থেকে পাওয়া যায়-

    ১) ঐ নিদের্শাবলী শুরু হয়েছে ‘আল্লাহু আকবর’ দিয়ে।
    ২) এরপর বলা হয়েছে- “বাঙ্গালীর অপরাধ তারা আল্লাহ তা’আলার
    সৃষ্ট পৃথিবীতে, আল্লাহর নির্দেশমত সম্মানের সাথে সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে চেয়েছে। বাঙ্গালীর অপরাধ মহান স্রষ্টার নির্দেশমত অন্যায়, অবিচার, শোষণ-জলুম
    নির্যাতনের অবসান ঘটিয়ে এক সুন্দর ও সুখী সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তুলবার
    সংকল্প ঘোষণা করেছে। ………….আমাদের সহায় পরম করুণাময় সর্বশক্তিমান আল্লাহর সাহায্য।”
    ৩) এরপর মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে- “এ সংগ্রাম আমাদের বাচার সংগ্রাম, সর্বশক্তিমান আল্লাহ তালার উপর বিশ্বাস রেখে ন্যায়ের সংগ্রামে অবিচল থাকুন”।
    ৪) সর্বশেষে মুক্তিযোদ্ধাদের মনোবল বাড়াতে ঘোষণাপত্র শেষ হয়েছে দু’টি কোরআনের আয়াত দ্বারা-স্বরণ করুণ আল্লাহ প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন
    “অতীতের চাইতে ভবিষ্যত নিশ্চয়ই সুখকর।” এবং
    বিশ্বাস রাখুন— “আল্লাহর সাহায্য ও বিজয় নিকটবর্তী।”
    (ছবি: বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ দলিলপত্র, তৃতীয় খণ্ড। পৃষ্ঠা: ১৬-১৯। ১৯৭১ সালের ১৪ই এপ্রিল বাংলাদেশ সরকার প্রচার দপ্তর থেকে প্রাপ্ত “স্বাধীন বাংলার সংগ্রামী জনগণের প্রতি বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশাবলী“)

    মুক্তিযুদ্ধের দলিল থেকে একটি বিষয় স্পষ্ট, ইসলামী চেতনার মাধ্যমেই মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিলো। অথচ মূর্তি-মঙ্গলশোভাযাত্রা-রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল কিংবা পাঠ্যপুস্তকে হিন্দুত্ববাদ সবগুলোই ইসলাম বিরোধী চেতনা। তারমানে-
    সুপ্রীম কোর্টের সামনে গ্রিক দেবীর মূর্তি ভেঙ্গে ফেললেই,
    রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম জারি রাখলেই,
    মঙ্গলশোভাযাত্রা বন্ধ করলেই,
    পাঠ্যপুস্তক থেকে হিন্দুত্ববাদ বাদ দিলেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন হবে, যা ভিন্ন কোন উপায় থাকতে পারে না।

    1. Md Nazmus Sakib বলেছেন

      উত্তর দাও বান্দরের নাতি পুতিরা!

  25. Gazi Hosain বলেছেন

    Sagar Kamal উঃ টা দিবেন ককি? বেশতো ! সুপ্রীম কোর্টে রোমান বিচারদেবীর মূর্তি বসেছে, এবার না হয় দেশে রোমান আইন চালু হোক !

    সুপ্রীম কোর্টে রোমান বিচারদেবীর মূর্তি (গ্রিক- জাস্টিসিয়া, রোমান- থেমিস একই) স্থাপিত হয়েছে খুব ভালো কথা। কিন্তু রোমান আইন ও বিচারব্যবস্থাকে আমরা কেন গ্রহণ করছি না। সেগুলোও বাংলাদেশের আইন ও বিচার ব্যবস্থার সাথে সংযুক্ত করা হোক। আসুন দেখি প্রাচীন রোমান সম্রাজ্যের কিছু বিচার ব্যবস্থা।

    ১) গাধার ভেতরে সিলাই করে দেয়া (Sewn Into A Donkey):
    এটা প্রাচীন রোমে একটি শাস্তির পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে একটি গাধাকে প্রথমে হত্যা করা হতো। এরপর গাধার পেটের সমস্ত নাড়িভুড়ি বের করে দোষী ব্যক্তিকে গাধার পেটে ঢুকিয়ে দিয়ে, শুধু মাথা বের করে বাকিটা সেলাই করে দেয়া হতো। এরপর জীবিত মানুষসমেত মৃত গাধাটিকে উত্তপ্ত রোদে রেখে দিলে কিছু সময় পর গাধার চামড়ার প্রচণ্ড গরমে মানুষটি জ্বলসে মারা যেতো।

    ২) বন্য শুকরের খাদ্যে পরিণত করা (Fed To Wild Hogs) :
    কম বয়সী কুমারি নারীদের এ পদ্ধতিতে শাস্তি দেয়া হতো। এ পদ্ধতিতে প্রথমে কুমারী নারীকে দাসদের দিয়ে গণধর্ষণ করানো হতো। এরপর নারীটিকে জনসম্মুখে নগ্ন করে জীবন্ত নারীটির পেট কেটে তার ভেতর থেকে সমস্ত নারীভুরি বের করে (নারীটি মারা পরতো) সেখানে বার্লি (যব) ভরা হতো। এরপর তাকে বন্য শুকরকে দেয়া হতো, এবং বন্য শুকর নারী শরীরটিকে ছিড়ে কুড়ে খেয়ে ফেলতো।

    ৩) লিঙ্গ কর্তন/খোজা করা (Cut Off)
    প্রাচীন রোমে যার র‌্যাঙ্ক যত উপরে সে নিচের র‌্যাঙ্কের লোকের সাথে ইচ্ছামত সমকামীতা করতে পারতো। কিন্তু নিজের র‌্যাঙ্কের লোকেরা উপরের র‌্যাঙ্কের লোকের সাথে ইচ্ছার বিরুদ্ধে সমকামীতা করতে পারতো না। যেমন সম্রাট চাইলে জেনারেল, জেনারেল চাইলে লেফটেনেন্ট, সৈনিক চাইলে সাধারণ জনতার সাথে সমকামীতা করতে পারতো। কিন্তু উল্টো সম্ভব ছিলো না। উল্টো হলে নিচের র‌্যাঙ্কের পুরুষের লিঙ্ক কর্তন/খোজা করা হতো।

    ৪) লিঙ্গ বেধে রাখা (Or Tied Off):
    এ পদ্ধতে দোষী ব্যক্তিকে প্রচুর পরিমাণে মদ পান করানো হতো। এরপর তার লিঙ্গ শক্ত করে বেধে ঝুলিয়ে রাখা হতো যেন সে প্রস্রাব না করতে পারে।

    ৫) মন্ত্রীদের নির্যাতন (Tortured Senator)
    এ পদ্ধতিতে রোমান সম্রাটরা দোষী মন্ত্রীদের শাস্তি দিতো। এক্ষেত্রে প্রথমে মন্ত্রীর বুক ও পেটকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে চিড়ে ফেলা হতো। এতে মন্ত্রী মারা পরতো না। এরপর তার চোখ উপড়ে ফেলা হতো। এরপর লোহার শিক গরম করে পেটের ভেতর থেকে একটি একটি অঙ্গপ্রতঙ্গ বের করে হত্যা করা হতো। সবশেষে মন্ত্রীর শরীরটাকে টুকরা টুকরা করা হতো। উল্লেখ্য প্রাচীন রোমে মৃত্যুকে শাস্তি হিসেবে গণ্য করা হতো নরা। মৃত্যুকে মুক্তি পাওয়ার মাধ্যম মনে করা হতো। এজন্য মৃত্যুর আগে নির্যাতনের পরিমাণটুকু শাস্তি হিসেবে গণ্য করা হতো।

    ৬) ব্যারেলে পেরেক দিয়ে আঁটকানো (Nailed Into Barrels):
    এ পদ্ধতিতে ধর্মবিশ্বাসীদের শাস্তি দেয়া হতো। প্রথমে ব্যক্তিকে প্রচুর পরিমাণে মধু ও দুধ পান করানো হতো। এরপর তাকে একটি ড্রামের মধ্যে পেরেক দিয়ে আটকানো হতো। এরপর ঐ ব্যক্তিকে বিভিন্ন পরজীবি পোকামাকড় খাবারের মাধ্যমে পেটে প্রবেশ করানো হতো। এতে ঐ পরজীবিগুলো তার পেটের সবকিছু খেয়ে ফেলতো।

    ৭) জীবন্ত কবর দেয়া (Buried Alive) :
    সম্রাট নিরো এ পদ্ধতি নারীদের শাস্তি দিতো। যদি কোন কুমারী মেয়ে সতিত্ব নষ্ট করতো তাদের জীবন্ত কবর দিতো। অনেক সময় ব্যতিক্রম হতো। এক্ষেত্রে দোষী নারীকে নিজের কবর নিজেই খুড়তো এবং হয় তাকে শুলে চড়িয়ে হত্যা করা হতো (অপরাধ বড় হলে) অথবা শুলকে হার্ট বরাবর শুল বিদ্ধ করে হত্যা করা হতো (অপরাধ ছোট হলে)

  26. Gazi Hosain বলেছেন

    ৮) মাঝ বরাবর খেয়ে ফেলা (Eaten Through the Middle) :
    এ পদ্ধতিতে দোষী ব্যক্তির পেটের উপর একটি ধাতব পাত্র স্থাপন করা হতো, যার ভেতরে থাকতো ইদুর। এ ধাতব পাত্র উপর থেকে গরম করা হতো, এতে ইদুরটা গরম সহ্য করতে না পেরে ঐ ব্যক্তির পেট বরাবর খেয়ে ভেতরে প্রবেশ করতো।

    ৯) মৌমাছির বাস্কেট (Bee Basket) :
    এ পদ্ধতিতে দোষী ব্যক্তি নগ্ন করে জালের মধ্যে প্রবেশ করানো হতো। এরপর জালসমেত লোকটিকে একটি বড় মৌমাছির চাকের সাথে ঠেঁসে ধরা হতো। এতে মৌমাছিগুলো রাগান্বিত হয়ে লোকটিকে কামড়ে কামড়ে হত্যা করতো।

    ১০) ক্রুশ বিদ্ধ করা (Crucifixion):
    এ পদ্ধতিতে রোমানরা যিশু খ্রিস্টকে হত্যা করেছিলো। এ পদ্ধতিতে দোষী ব্যক্তিকে ক্রুশের সাথে পেরেক দিয়ে আটকে রাখা হতো। অনেক সময় আক্রান্ত ব্যক্তি এমনি মারা যেতো, অনেক সময় ক্রুশবিদ্ধ করে পেটানো হতো।
    (তথ্যসূত্র:http://bit.ly/2lRTome, আর্কাইভ- http://archive.is/cogU0)

    মজার বিষয় কি জানেন, যারা ইসলামী শরীয়া আইন বর্বর বলে সারা দিন চেচায়, তারাই আজকে রোমান বন্য আইন ও বিচার ব্যবস্থার পক্ষে সাফাই গেয়ে সুপ্রীম কোর্টের মূর্তির পক্ষে বলে চলেছে । সত্যিই মাননীয় স্পিকার, আমি….টুট..টুট.. হয়ে গেলাম।

  27. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

    Gazi Hosain ভাই, আপনার কমেন্টের উত্তর দেওয়ার যোগ্যতা ওদের নেই, জাযাকাল্লাহ

  28. Sagar Kamal বলেছেন

    হয়তো ঠিক বলেছেন ভাই Anm Ahmad Ullah। উনার কপি /পেস্টের উত্তর দেয়ার যোগ্যতা নেই। 😛

  29. Anm Ahmad Ullah বলেছেন

    Sagar Kamal ভাই, তাহলে মেনে নিলেন গ্রিক মূর্তি রাখা যাবেনা।

  30. Gazi Hosain বলেছেন

    আপনার মত লোকের জন্য তৈরি করে রাখছি কপি করে বসাইছি খালি উঃ দিবেন কথা থেকে?? মায়ের পেট থেকে আবার জন্ম হয়ে আসেন তার পর না হয় উঃ দিয়েন 😛 😛

  31. Md Nazmus Sakib বলেছেন

    কপি পোস্ট দোষের নাকি??
    ওনি আগেই জওয়াব গুলি নোটপ্যাডে টাইপ করে রেখেছেন।
    আর মূর্তি প্রীতি ওয়ালা লোকদের প্যাকেট থেকে বের করে এক ড্রোজ এক ড্রোজ করে দেন।

    1. Gazi Hosain বলেছেন

      মাইরালা 😀 😀 😀

  32. Sagar Kamal বলেছেন

    Gazi Hosain vye আপনি শুরুতেই একজন মানুষকে ‘বদনা’ সম্বোধন করেছেন দেখে বাকিটা পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছি। যুক্তিতে না পরলে মানুষ এমন করে।

    1. Gazi Hosain বলেছেন

      😛 😛 😛 কেউ আমারে ধর
      আপনার জনন্য এক বালতি আফচুছ যান ঔষুদ খাইছেন এবার ঘুমান না হয় মাথা চক্কর দিবে

  33. Sohel Sobhan বলেছেন

    দ্রুজ ধর্মের অনুসারীরা যখন মুসলমান হলো তখন তারা অদ্ভুত একটা কায়দা ইসলামে নিয়ে আসলো! অদ্ভুত কায়দা কানুন সম্পর্কে জানলে ভাল লাগবে!

  34. Sohel Sobhan বলেছেন

    আলোচনা ছিল মুর্তি নিয়ে… ??? ভাবমুর্তি শব্দটা থেকে মুর্তি অংশটা বাদ দিলে থাকে ভাব??????

  35. Kawsar Alam Bhuiyan বলেছেন

    অসংখ্য ধন্যবাদ এবং শুকরিয়া মুসলিম নামধারী কপট বাম-রাম কাপালিকদের শয়তানী যুক্তিকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেওয়ার জন্য @ Gazi Hosain

  36. Gazi Hosain বলেছেন

    Saiful Islam Shilpi Anm Ahmad Ullah Md Nazmus Sakib ভাই আপনারা এখন আর Sagar Kamal ওরপে বদনা পারবেজ 😛 Sohel Sobhan সাথে কথা বলিয়েন না ৫০০০ এমজি খাইছে এখন উনাদের ঘুমের সময় না হয় আবার উনাদের বার মাথা চক্কর দিবে 😛 😛

  37. Sagar Kamal বলেছেন

    হা হা হা….. একটু হোমওয়ার্ক করে তারপর তর্ক করতে আসবেন। কপিপেস্ট তার্কিকরা আমাদের সাথে অনেক আগেই হার মেনেছে। Gazi Hosain ভাই….

    1. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      কপিপেষ্টের ভান্ডার শেষ 😛

  38. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

    Sagar Kamal Sohel Sobhan Alamgir Apu আপনারা যারা নিজেদের নামে মুসলমান দাবী করেন.তাদের বলছি। আপনারা আগে বলুন কি নিয়ে আপনাদের বির্তক বা সন্দেহ। সেটা ক্লিয়ার করুন। যদি বির্তক কোন ব্যাক্তি বা দল যেন হেফাজত জামায়াত বা বিএনপি। তহলে করতেই পারেন। আর যদি বলেন যে কোরআন বা ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপনাদের সন্দেহ আছে..? তাহলে সেটা স্পস্ট ক্লিয়ার করুন।কোন বিষয়ে বির্তক করতে চান..?

    1. Sohel Sobhan বলেছেন

      হাহাহা… সত্যকে আগলাতে হয়না। সত্য চিরকাল নিজ শক্তিতে বলিয়ান। মিথ্যাকে আগলাতে হয়। মিথ্যেকে নিয়ে ভয় হয়। ???

    2. Sagar Kamal বলেছেন

      খাসা বললি…. Sohel Sobhan

    3. Gazi Hosain বলেছেন

      ছিলো প্রথমে মূর্তিতে যখন উঃ নিয়ে আসলাম চলে গেছে কোরআনে তারপর দলে তারপর হালাল হারামে তার পর আর কি বলবো লাষ্ট কথা বলছে পাকিস্তান ইনডিয়া বাংলাদেশর কাটাতার কেটে দিতে যানে উনারা একটু মানুষ হতে পারে। ভাই এরা যে মানুষ না তারা নিজেরাই শিকার করছে আর তর্ক না বাদ দেন। হাঁ যদি তারা যুক্তি সংগত প্রশ্ন করে সেটার উঃ দেওয়া হবে

    4. Sagar Kamal বলেছেন
    5. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আরে এসব ফাউ কথা না বলে যা প্রশ্ন করেছি সাহস থাকলে উক্তর দেন। ইসলাম ধর্ম কোরআন আর আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস আছে কিনা। আল্লাহর নির্দেশ মানেন কিনা সরাসরি হা না বল। ঘুরিয়ে বা প্যাচিয়ে বলার দরকার কি..?

    6. Sohel Sobhan বলেছেন
    7. Sagar Kamal বলেছেন

      গাজী ভাই, দু’দিনের বৈরাগী হয়ে ভাতেরে কচ্ছেন অন্ন। আমরা কচ্ছি মূর্তিটা হচ্চে ভাত আর আপণে কচ্ছেন অন্ন।

    8. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      এইভাবেই ধরা আপনারা ..?সত্য বলার সাহস টুক িরাখেন না। হাসিয়ে উড়িয়ে দেন।

    9. Sagar Kamal বলেছেন
    10. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      তাহলে পরাজয় মানলি..নিরবতা সম্মতির লক্ষণ,,ধন্যবাদ।

    11. Gazi Hosain বলেছেন

      তাই বুঝি ওল্লে ওল্লে বাবুলে :-* ভাই এবার একটু ঘুমান যান 🙁
      😛
      😛

    12. Sagar Kamal বলেছেন
    13. Sagar Kamal বলেছেন

      Saiful Islam Shilpi আপনি কি ভাত নাকি রুটি খান? গ্রীক প্রতীকী একটা মূর্তির সাথে ইসলাম, ধর্ম বিশ্বাস, আল্লাহ এসবের সুদূরতম কোন সম্পর্ক নেই। হেফাজতের যখন ৫০০০গ্রাম খাওয়ার ভাউ উঠে, তখন তার এসব ফাউল জিনিস নিয়ে লাফালাফি করে। পরে অবশ্য কান ধরে পার পায়। আমাদের অবস্থান পরিষ্কারভাবে হেফা গিরগিটী চরিত্রের বিরোধী। আশাকরি শহীদ /গাজী সবাই বুঝতে পেরেছে।
      😛

    14. Sohel Sobhan বলেছেন

      হেফাজত খানা, মোহাফেজ খানা এগুলো সম্পর্কে যাদের ধারণা আছে- তাদের কাছে এ নামকরন টা একটু অদ্ভুত লাগে। কে কার হেফাজত করবার কথা আর করছে কে!? এটাতো পুরোপুরিভাবে শিরকের নামান্ত্বর?

    15. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আমি তোমাকে হেফাজত জামায়াত গ্রিকমুর্তি কিছু বলেনি। কি বলেছি তা আবার পড়ে দেখো। তার পর সাহস খাকলে সরাসরি উত্তর দাও।

    16. Sagar Kamal বলেছেন

      যে প্রশ্ন করছস, সেটার উত্তর দিতে আবার সাহস লাগে নাকি?
      😛

    17. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      এতো গড়িমশি কেন..?

    18. Sagar Kamal বলেছেন

      cp….. উত্তর দেয়া হয়েছে, তুই না বুঝলে কি কইত্তাম?
      😛

    19. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আবারও বলছি আল্লাকে মানস কিনা..? আল্লাহর নির্দেশ পালন করস কিনা। কোরআন বিশ্বাস করস কিনা। শুধু হ্যা অথবা না বল। ঘুরিয়ে প্যাচানোর দরকার নেই।

    20. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      লাগছে খেলা!!আচ্ছা,আমার একটা প্রশ্ন,Sagar Kamal ভাই,এরা দেখি সব জান্তা!তবে আশ্চার্য হলাম যে এরা লিঙ্গের সাইজ জানলো ক্যামতে???

    21. Sohel Sobhan বলেছেন

      হা হা হা ??

  39. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

    ইসলামের দৃষ্টিতে মুর্তি পুজা যেমন হারাম এবং বর্জনীয়,ঠিক তেমনি সকল হারামকে বর্জন করা হোক।শুধুই সুপ্রিম কোর্টের সামনের হারাম মুর্তি সরানোতেই হারাম বর্জিত দেশ হবে না।অনেকেই তেনা পেচিয়ে অনেক হারাম বস্তু হালাল করে ব্যবহারের পায়তারা করছেন,তাদের কাছে সবিনয়ে জানতে চাই যে ইসলাম ধর্মানুযায়ী কোন ক্ষুদ্রতম হারাম কাজ করা বা হারাম বস্তু ব্যবহার করা বা খাওয়া জায়েজ আছে?হোক না সেটা অতিক্ষুদ্রতম কাজ বা বস্তু!

  40. Mohammed Asif Chowdhury বলেছেন

    Prothom Alo liklo 500 manusher somabesh

    1. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      গাঁজা খোর..মিডিয়া…এ ছবি দেখে আপনার কি তাই মনে হয়..? তাহলে বুঝেন তাদের সাংবাদিকতা..?

    2. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      এরা অবশ্য গাঁজা খোর না হলেও গাঁজা বিক্রেতা 😛

    3. Rodrotonu Rt বলেছেন

      hujuga bangalir lokho manush r 500 , tofat ki?

    4. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      ৫০০ আর লক্ষ মানুষের তফাৎ কি আপনি বুঝেন না..?

    5. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      সহিদুল ইসলাম নিজে কি সেটা ভাবো।

    6. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

      শুধু অন্যের ক্ষেত্রে আঙ্গুল দিয়া দেখাতে পারেন……

    7. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      যে আমাকে প্রশ্ন করেছে তার উত্তর দিয়েছি তোমার কোন সমস্যা..?

    8. Rodrotonu Rt বলেছেন

      saiful vai sorry to not understand me, infact i wanna mean that we have lot of problems then this topics but we generally dont see this type of gather of people for this problems.

    9. Saiful Islam Shilpi বলেছেন

      আমাদের দেশে হাজারো সমস্যা আছে থাকবে। এটাই নিয়ম। সব কাজ সবাই করেনা। রাজনৈতিক দলের কাজ রাজনীতি করা। মেথরের কাজ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা। তার কাজ কিন্ত অন্য সম্প্রদায় করে না।

  41. Rodrotonu Rt বলেছেন

    dabi valo mondo jai hok na kano desha ato khun , dhorshon, cholche koi asob niato atoboro somabesh hoi ni, at ki aisober cheyeo besi kithu !!!!

  42. সহিদুল ইসলাম বলেছেন

    হালাল মুর্তি 😛